Wellcome to National Portal
মেনু নির্বাচন করুন

পাতা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কিছু লেখা

একটি মুজিব

একটি মুজিব মানে

লক্ষ কোটি আমি ।

একটি মুজিব যেন 

তারও চেয়ে দামী।

 

মুজিব মানে জাগ্রত চোখে

স্বপ্ন দেখার লোভ।

হায়েনার গায়ে ঘৃণাভরা চোখে

থুথু ছিটাবার ক্ষোভ।

বুকের তাজা রক্ত ঢেলে

দেশ বাঁচানোর শক্তি।

মুজিব মানে পরাধীনতার 

শৃঙ্খল হতে মুক্তি।

মুজিব মানে সাতই মার্চে

তেজ মাখা সে ভাষণ।

মুজিব মানে কোটি হৃদয়ে 

পুষ্পে গড়া আসন।

 

একটি মুজিব হাজার বছরে

পাবো কি ফিরে আর?

হাজার বছরে শ্রেষ্ঠ বাঙালী

সালাম বারংবার।

                    

 

তুমি আমার, তুমি সবার 

তুমি  গীতিকবি, লিখেছিলে মুক্তির গান।
তুমি জাগ্রত ভাস্কর,চিত্রকর-
স্বপ্নের অবয়বে এঁকে দিয়েছিলে প্রাণ।
তুমি আশার প্রদীপ, আত্মবিচ্ছুরিত রবি,
ভেঙেছিলে ভীতিগৃহ, ঢেলেছিলে আলো-
উদ্ভাসিত হয়েছিল নতুন দিনের ছবি।
আপন তাজে মশাল জ্বেলে,পথ দেখালে।
রেখে যাওয়া চিহ্নে পা ফেলে-
বিজয় ছিনিয়ে আনতে শেখালে।
হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী স্বীকৃতি তো তোমাকে মানায়।
তুমি ছিলে স্বপ্ন-সুখের ফেরিওয়ালা-
অভিবাদন তাই তোমাকে জানাই।

চাওনি তুমি এমন বিদায়,চাওনি যেতে এভাবে,
তুমি কী আর ভেবেছিলে মুখোশ-মানুষ-
আর পশুরা আলোর মিছিল নেভাবে!

তোমার নাম হৃদয় জুড়ে থাকবে বহমান,
তুমি আমার,তুমি সবার-
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।


একটি ছাব্বিশের সকাল

ছাব্বিশে মার্চ একটি অশনি ভোরের নাম।
একটি হারানোর মিছিলের গান,
একটি প্রাপ্তিহীন সকালের নাম।

পেরিয়ে এক রঞ্জিত কালো রাত, রঞ্জিত কালো পথ, ভোর হল।
হাজারো অপ্রাপ্তির মাঝে প্রাপ্তি,
ঘোষিত হল স্বাধীনতা, 
শুরু হল নতুন গল্পগাথা।

চিৎকার,হাহাকার, আর্তনাদে জগৎটা ফিরেছিলো কুরুক্ষেত্রে।
পান্ডব,কৌরব নেই, শুধু একপেশো খুন,এক পক্ষের রক্তে ভিজেছিল ভূমি।
পিলখানা,ই.পি.আর,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।
এরা সব ঘুমঘোরে বুকে অনুভব করে তপ্ত শীসার স্বাদ।
সকাল হলো এক ভয়ংকর নিরবতা হাতে।
চারদিক সুনসান,সব যেন শ্মশান পথের যাত্রী।
ঝড়ের আগে বাতাসের স্তব্ধতা,ভয় ধরায়, কিছু ঘটতে চলেছে।
তারপর, একে একে আসলো সাতাশ,আসলো আটাশ।
পেরিয়ে চলল সময়,বেরিয়ে আসলো বাঙালীর তেজের আভাস।
বাঙালীর নাম হল বীর,বাঙালী হল গাজী।
বাঙালীর নাম হল মুক্তিসেনা, রাখল জীবন বাজি। 
কেটে গেল নয়টি পূর্ণ মাস,হল চরম প্রতিশোধ,
প্রাপ্তির খাতায় যোগ হল একটি বক্র মানচিত্র।
একটি স্বাধীন নাম বাংলাদেশ।

হারানোর তালিকা হল অনেক বেশী ভারি,
ত্রিশ লক্ষ বীর লুটালো ধূলায়,রক্তে ধুয়ে গেল পথ।
দুই লক্ষ বোন নিজেকে হারিয়ে দেখালো স্বপ্নরথ।
আজো কিছু পা হারা, হাতবিহীন যোদ্ধা দেখি
আরো দেখি বুকে ক্ষত নিয়ে বেঁচে থাকা শত বীর।
তখনই মনে পড়ে এই তো সে,যার বুকের রক্তে- 
 সবুজ বুক ভরেছিলো লালে, 

লেখা হয়েছিলো একটি স্বাধীনতার গান,
বাংলাদেশ আমার বাংলাদেশ,
মাগো রেখেছি তোমার মান।

 

ফিরে এসো
আমার বঙ্গবন্ধুকে ফিরিয়ে দাও এই বদ্বীপে।
বিনিময়ে দাও সবুজে ঘেরা  শুভ্র নিশান,
 আমি বুকের রক্ত ঢেলে মাঝখানে তার ভরিয়ে দেব লালে। 
বঙ্গবন্ধুকে আরেকটি বার ১৬ আগস্ট ভোরে জীবিত দেখাও।
আনন্দে আমি মেঘনা,যমুনার দুকুল ছাপিয়ে দেব নোনতা চোখের জলে।
বঙ্গবন্ধুকে আরেকবার এনে দাড় করিয়ে দাও বাঙালীর রেসকোর্সে।
 স্বাধীনতার সুবাতাস বয়ে যাবে আরো একবার এই পোড়া দেশে।
আরেকটিবার ফিরে এসো বঙ্গবন্ধু,
এদেশের শান্তিলোভী মানুষের মাঝে এসো 
মাথার মুকুট হয়ে এসো অভিভাবকের বেশে।

                                                           ----শাওন শান্তনূর শান্ত

ছবি


সংযুক্তি

হলে না শহীদ মাতা হলে না শহীদ মাতা


সংযুক্তি (একাধিক)